সিলেটে অগ্নিকান্ডে মা ও শিশুসহ নিহত ৫, আহত ২

75

সিলেট, ১৮ মার্চ, ২০১৬ (বাসস) : জেলার গোলাপগঞ্জে অগ্নিকান্ডে মা ও শিশুসহ ৫ জন নিহত এবং ২ জন আহত হয়েছে।
শনিবার রাত আড়াইটায় উপজেলার লক্ষ্মনাবন্দ গ্রামের লয়লু মিয়ার কলোনিতে এ দুর্ঘটনা ঘটে।
অগ্নিকা-ে মৃত গোলাপগঞ্জ উপজেলার পনাইরচক গ্রামের মছকন্দর আলীর স্ত্রী সেবু বেগম (২২), দক্ষিণ নোয়ারইচক গ্রামের সেবুল মিয়া (১৭) ও জিয়া উদ্দিন (১৮) এবং দক্ষিণ সুরমা উপজেলার খালেরমুখ গ্রামের বাবলু মিয়ার স্ত্রী তাসনিমা বেগম (৩০) ও তার শিশুসন্তান তাহমিদ (২)। মৃত দু’নারীই অন্তঃসত্ত্বা ছিলেন। অগ্নিকা-ে আহত হয়েছেন বাবলু মিয়া ও মছকন্দর আলী। হতাহতরা লয়লু মিয়ার কলোনিতে রুম ভাড়া নিয়ে বসবাস করতেন।
এলাকাবাসী, পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস সূত্রে জানা যায়, শনিবার রাত আড়াইটায় বৃষ্টির সাথে বজ্রপাত হলে কলোনি গ্যাস রাইজার বিস্ফোরিত হয়ে আগুন ধরে যায়। মুহূর্তের মধ্যেই আগুন কলোনিতে ছড়িয়ে পড়ে। আগুনে দুটি রুম ভষ্মীভূত হয়। রুমের ভেতর আটকা পড়ে ঘটনাস্থলেই মারা যান সেবু বেগম, সেবুল মিয়া, জিয়া উদ্দিন, তাসনিমা বেগম ও শিশু তাহমিদ। এসময় স্থানীয় লোকজন জানালা ভেঙে বাবলু মিয়া ও মছকন্দর আলীকে উদ্ধার করে সিলেট এম.এ.জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। আহত দু’জনের মধ্যে বাবলুর অবস্থা গুরুতর।
অগ্নিকা-ের খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট রাত সাড়ে তিনটায় ঘটনাস্থলে পৌঁছে উপস্থিত লোকজনের সহযোগিতায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।
গোলাপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ.কে.এম ফজলুল হক শিবলী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, মৃতদের মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।
এদিকে, আজ (রোববার) সকালে ঘটনাস্থল পরির্দশন করেছেন সিলেট জেলা পুলিশ সুপার মো. মনিরুজ্জামান। এসময় তিনি বলেন, আহত ফজলু মিয়াকে প্রয়োজনে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় প্রেরণ করা হবে। একই সাথে মৃতদের পরিবারকে সহায়তা প্রদান করা হবে বলেও জানান তিনি।

image_printPrint