এনবিআর বাজেট প্রস্তাব চেয়েছে

79

ঢাকা, ১৮ মার্চ, ২০১৮ (বাসস) : আসন্ন ২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেট প্রণয়নের লক্ষ্যে ব্যক্তি, চেম্বার, সংস্থা ও প্রতিষ্ঠানের কাছে তাদের নিজ নিজ বাজেট প্রস্তাবনা চেয়েছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। বিভিন্ন চেম্বার ও বণিক সমিতিকে ২১ মার্চের মধ্যে তাদের প্রস্তাব ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন বাংলাদেশ শিল্প ও বণিক সমিতি ফেডারেশনের (এফবিসিসিআই) কাছে পাঠাতে বলেছে রাজস্ব প্রশাসন।
রোববার এনবিআরের প্রধান বাজেট সমন্বয়কারী মোহাম্মদ লুৎফর রহমান স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে,এনবিআর সরকারের রাজস্ব আহরণ ও বাজেট প্রণয়নের রাজস্ব নীতিমালা প্রস্তুত করে থাকে।এ লক্ষ্যে এনবিআর একটি অংশগ্রহণমূলক, গণমুখী ও সুষম বাজেট প্রণয়নে বরাবরই সকল পর্যায়ের করদাতা,বিভিন্ন শিল্প ও বণিক সমিতি,ট্রেড এসোসিয়েশন, পেশাজীবী সংগঠন, গবেষণা প্রতিষ্ঠান ও দেশের বুদ্ধিজীবী মহলের নিকট থেকে বাজেট প্রস্তাবনা আহবান এবং তাদের সঙ্গে রাজস্ব আহরণ পদ্ধতি সম্পর্কে আলোচনা করে আসছে। ২০১৮-১৯ অর্থবছরের রাজস্ব আহরণ কার্যক্রম অধিকতর অর্থবহ,বিশ্লেষণধর্মী ও প্রতিনিধিত্বশীল করার জন্য এনবিআর আলাপ আলোচনার মাধ্যমে বাজেট প্রণয়নে আগ্রহী।
এনবিআর বলছে,অর্থমন্ত্রী দেশের বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ ও গবেষকদের সঙ্গে প্রাক-বাজেট আলোচনা ইতোমধ্যে শুরু করেছেন।জাতীয় রাজস্ব বোর্ডও বাজেট প্রস্তুতির কাজ শুরু করেছে।
বাজেট প্রস্তুতে সহায়তার লক্ষ্যে বিভিন্ন চেম্বার ও এসোসিয়েশনের স্ব স্ব বাজেট প্রস্তাব লিখিতভাবে এফবিসিসিআইয়ের কাছে পাঠাতে বলেছে এনবিআর। একইসাথে প্রস্তাবের আর একটি সফট কপি ই-মেইল (হনৎনঁফমবঃ২০১৮.২০১৯@মসধরষ.পড়স) এর মাধ্যমে এনবিআরে পাঠাতে হবে। যে সকল প্রতিষ্ঠান, সংস্থা বা দফতর কোন চেম্বার বা এসোসিয়েশনের সদস্য নয়, তারা এই ই-মেইল ঠিকানায় বাজেট প্রস্তাবনা এনবিআরকে পাঠাতে পারবেন।
এ প্রসঙ্গে অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব ও এনবিআর চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসেন ভূইয়া বাসসকে বলেন, ‘করদাতাদের সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমে একটি সুষম ও ব্যবসাবান্ধব বাজেট প্রণয়নে কাজ করবে এনবিআর। আগামী অর্থবছরের বাজেট প্রণয়নে এরই মধ্যে অর্থমন্ত্রী দেশের প্রাজ্ঞ অর্থনীতিবিদ ও বিভিন্ন গবেষণা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে প্রাক-বাজেট আলোচনা শুরু করেছেন। এনবিআরও বরাবরের মত এবছরও বিভিন্ন অংশীজনের সঙ্গে বাজেট প্রণয়নের বিষয়ে আলোচনা করবে।এর প্রস্তুতির অংশ হিসেবে আমরা বিভিন্ন অংশীজনের কাছে বাজেট প্রস্তাবনা আহবান করেছি।’
সকলের সহযোগিতায় ২০১৮-১৯ অর্থবছরের জন্য একটি অংশীদারিত্বমূলক, গণমুখী, শিল্প, ব্যবসা ও করবান্ধব এবং একইসঙ্গে রাজস্ব সম্ভাবনাময় বাজেট প্রণয়ন করা সম্ভব হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

image_printPrint