জয়পুরহাটে ২ হাজার ৮১০ টি ফলবাগান স্থাপন

252

জয়পুরহাট, ১৭ জুন, ২০১৯ (বাসস) : জেলার পাঁচ উপজেলায় ২০১৮-২০১৯ অর্থ বছরের রাজস্ব খাতের আওতায় ২ শ ৮১০ টি ফলবাগান ও প্রযুক্তি প্রদর্শনী স্থাপন করা হয়েছে।
জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্র বাসস’কে জানায়, কৃষি মন্ত্রণালয়ের অধীন রাজস্ব খাতের অর্থায়নে ফলবাগান ও প্রযুক্তি প্রদর্শনী স্থাপন ২০১৮-১৯ কার্যক্রমের আওতায় ওই ফলবাগান ও প্রযুক্তি প্রদর্শনী স্থাপন করা হয়। এরমধ্যে আমবাগান ১ হাজার ৮১৫ টি, কাঁঠাল বাগান ২৯৮ টি, লিচু ৩৫৫ টি, পেয়ারা ২০৩ টি , কুল বাগান ৯৩ টি, মাল্টা ২১ টি , অন্যান্য ২৫ টি বাগান রয়েছে। বাগান গুলোতে গাছের সংখ্যা হচ্ছে ৯১ হাজার ৪১ টি। এতে ফলের উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ১০ হাজার ৬২৩ মেট্রিক টন। এ ছাড়াও প্রযুক্তি প্রদর্শনীর মধ্যে রয়েছে সজিনার চারা রোপণের বাড়ির সংখ্যা ৬৮টি, কম্পোষ্ট চেম্বার স্থাপনের বাড়ির সংখ্যা ৭৫ টি, লাইভ পাচিং প্লটের জন্য ব্লকের সংখ্যা ৫০টি, সবুজ সার প্রদর্শনীর প্লট গুচ্ছের সংখ্যা ২১২ টি ও রোপা আমন প্রদর্শনীর সংখ্যা ৬০ টি।
জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ পরিচালক সুধেন্দ্রনাথ রায় বাসস’কে বলেন, আবহাওয়া ভালো থাকায় এবার জেলায় বাগান গুলোতে বাম্পার ফলন হয়েছে । জেলায় বিভিন্ন ফলের বাগান তৈরিতে প্রশিক্ষণসহ বিভিন্ন কারিগরি সহযোগিতা করছে জামালগঞ্জ হর্টিকালচার সেন্টার। জামালগঞ্জ হর্টিকালচার সেন্টারের উদ্যানতত্ববিদ রাফসিয়া জাহান বলেন, জেলার আক্কেলপুর উপজেলার জামালগঞ্জ এলাকায় ৯ দশমিক ১৪ একর জায়গা সরকারি ভাবে ১৯৭৪ সালে প্রতিষ্ঠা করা হয় জামালগঞ্জ হর্টিকালচার সেন্টার। এখানে ৫০-৬০ প্রজাতির দেশী-বিদেশী ফলের চারা উৎপাদন ও কৃষক পর্যায়ে সরকার নির্ধারিত মূল্যে বিক্রি করা হয়ে থাকে। বিগত ছয় বছরে ৩৮ লাখ ৬৩ হাজার ৯৬১ টাকা রাজস্ব আয় হয়েছে চারা বিক্রি থেকে।

image_printPrint