রোহিঙ্গা ইস্যুতে মিয়ানমারের জবাবদিহিতার ওপর কানাডার গুরুত্বারোপ

104

ঢাকা, ২২ মে, ২০১৯ (বাসস) : বাংলাদেশে সফররত কানাডার সংসদ সদস্য কামাল খেরা বলেছেন, রোহিঙ্গা ইস্যুটি আন্তর্জাতিক আদালতে নিয়ে যেতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সঙ্গে তার দেশ যোগাযোগ রাখছে এবং এই ইস্যুতে মিয়ানমারের জবাবদিহিতা নিশ্চিত করার বিষয়টিতে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিচ্ছে।
ঢাকায় সফরকারী কানাডার সংসদ সদস্য কামাল খেরা আজ এখানে পররাষ্ট্র দফতরে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী এম শাহরিয়ার আলমের সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের বলেন, রোহিঙ্গা ইস্যুতে মিয়ানমারের জবাবদিহিতার বিষয়টি কানাডা সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিচ্ছে।
তিনি বলেন, তার সরকার কক্সবাজার জেলার জনগনের জন্য মানবিক সহায়তা হিসাবে আরো একশত মিলিয়ন ডলার দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে। এলাকার রোহিঙ্গা এং স্থানীয় জনগণের মানসম্পন্ন স্বাস্থ্য এবং লিঙ্গসমতা ভিত্তিক শিক্ষা সেবা প্রদানে উন্নয়ন সহায়তা হিসাবে এরমধ্যে ৬৮ মিলিয়ন ডলারও রয়েছে।
তিনি বলেন, তার দেশ শুরু থেকেই রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে কাজ করে যাচ্ছে। তিনি বলেন, আমরা প্রথমে অং সান সুকির নাগরিকত্ব বাতিল করেছি এবং মিয়ানমারের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা জারি করি। কানাডা রোহিঙ্গা সংকটের একটি গ্রহণযোগ্য সমাধানের পথ খুঁজে বের করতে কাজ করছে।
পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী এম শাহরিয়ার আলম বলেন, বৈঠকে বাংলাদেশ ও কানাডার মধ্যে দ্বিপক্ষীয় ইস্যু এবং ব্যবসা বাণিজ্য সহযোগিতা ইস্যু নিয়ে আলোচনা হয়েছে। তিনি বলেন, কানাডায় প্রবাসী বাংলাদেশীদের গুরুত্ব ব্যবহার করে দুটি দেশই কি ভাবে লাভবান হতে পারে, সে বিষয়টিও আলোচনায় উঠে আসে। তিনি বলেন, বাংলাদেশ যে সহায়তা নির্ভরতা থেকে সরে আসছে, সে বিষয়টি কানাডা বুঝতে পারছে এবং ঢাকার সাথে বাণিজ্য সম্পর্ক বাড়াতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে।
পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আলম রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে বাংলাদেশের প্রতি কানাডার মানবিক ও রাজনৈতিক সমর্থনকে স্বাগত জানিয়েছেন।
খেরা গত ২০ মে ঢাকা সফরে আসেন। বাংলাদেশ সফরকালে তিনি কক্সবাজারে কয়েকটি রোহিঙ্গা শিবির পরিদর্শন করেন।

image_printPrint