স্থানীয় সরকার নির্বাচনে নৌকার বিরোধীতাকারীরা জাতীয় নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন পাবেন না : হানিফ

309

যশোর, ১২ মে, ২০১৯ (বাসস) : আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ এমপি বলেছেন, যে সকল সংসদ সদস্য স্থানীয় সরকার নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীর বিরোধীতা করেছেন তারা জাতীয় নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন পাবেন না।
তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংসদ নির্বাচনে যাকে নৌকা প্রতীক দেন তৃণমূল নেতা-কর্মীরা তাকেই মেনে নেন। কিন্তু স্থানীয় সরকার নির্বাচনে এমপির পছন্দের বাইরে তৃনমূলের কেউ নৌকা পেলে তিনি (এমপি) নাখোশ হন। বিরোধীতা করেন। এটা হবে না।’
হানিফ আরো বলেন, অনেক এমপি স্থানীয় সরকার নির্বাচনে নৌকার বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছিলেন। আমাদের কাছে রিপোর্ট আছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে রিপোর্ট আছে। যে সব এমপি নৌকার বিরোধীতা করেছেন তারা আর কোন দিন দলীয় মনোনয়ন পাবেন না। সেই ব্যবস্থা করা হবে।
মাহবুব-উল আলম হানিফ আজ বিকেলে যশোর জেলা পরিষদ মিলনায়তনে জেলা আওয়ামী লীগের এক বর্ধিত সভায় এ কথা বলেন।
জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য পীযুষ কান্তি ভট্টাচার্য্য।
সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন এমপি, কেন্দ্রীয় কার্য নির্বাহী কমিটির সদস্য এস এম কামাল হোসেন, এডভোকেট আমিরুল ইসলাম ও পারভীন জামান কল্পনা।
বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে উদ্দেশ্য করে হানিফ বলেন, বিএনপি জামায়াত জোট আমলে যখন আওয়ামী লীগের ২৬ হাজার নেতাকর্মীকে খুন করা হয়েছিল, তখন ফখরুল সাহেবদের মানবতা কোথায় ছিল?
তিনি বলেন, আর এখন ফখরুল সাহেব জনগণের সিমপ্যাথি (সমবেদনা) নেওয়ার জন্য কান্না শুরু করেছেন। বলছেন বিএনপির নেতাকর্মীরা পালিয়ে ঢাকায় রিকসা চালাচ্ছে। তার কথা সঠিক নয়। তার দলের যারা ঢাকায় রিকসা চালায় তারা সন্ত্রাসী। তারা মানুষ পুড়িয়ে, হত্যা করে পালিয়েছে। আর তাদের জন্য ফখরুল সাহেবের চোখে পানি।
আগামি ২৬ সেপ্টেম্বর যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনের দিন নির্ধারণ করে হানিফ বলেন, জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনের আগে ওয়ার্ড, ইউনিয়ন, উপজেলা শাখার সম্মেলন করতে হবে। তৃণমূল থেকে দলকে ঢেলে সাজাতে হবে।
দলের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী প্রতিটি শাখার সম্মেলনের মাধ্যমে কমিটি গঠন করতে হবে বলে নির্দেশ দিয়ে তিনি বলেন, দলের বর্তমান নেতৃত্বকে আরও আন্তরিক হতে হবে। দায়সারা দায়িত্ব পালন করলে হবে না। দায়সারা দায়িত্ব পালন করলে, আগামী সম্মেলনে তাদেরকেও দায়সারাভাবে বিদায় দেওয়া হবে।
পীযুষ কান্তি ভট্টাচার্য্য বলেন, দলের তৃণমূলকে ঐক্যবদ্ধ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে হবে।
সভায় আরো বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান শাহীন চাকলাদার, যশোর-৫ আসনের এমপি ও এলজিআরডি প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য, যশোর-১ আসনের এমপি আফিল উদ্দিন, যশোর-২ আসনের এমপি মেজর জেনারেল (অব.) নাসির উদ্দিন, যশোর-৩ আসনের এমপি কাজী নাবিল আহমেদ, যশোর-৪ আসনের এমপি রণজিৎ কুমার রায়, যশোর-৬ আসনের এমপি ইসমাত আরাসহ বিভিন্ন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বৃন্দ।
অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক মুজিবুদ্দৌলাহ সরদার কনক।

image_printPrint