চাঁদপুরে স্বাস্থ্য প্রকৌশল বিভাগের ৭৪ কোটি টাকায় ৮ প্রকল্প বাস্তবায়ন হচ্ছে

50

চাঁদপুর, ২১ এপ্রিল, ২০১৯ (বাসস) : জেলার পল্লী এলাকার হতদরিদ্র মানুষের স্বাস্থ্যসেবার মান উন্নয়নের জন্য চাঁদপুর স্বাস্থ্য প্রকৌশল বিভাগ চলতি ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরে ৮টি প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে। এসব প্রকল্প বাস্তবায়নে সরকারের রাজস্ব খাত থেকে ৭৪ কোটি ৮৪ লাখ টাকা ব্যয় হচ্ছে।
সবগুলো প্রকল্পের ৫টি নির্মাণাধীন ও ৩ টেন্ডার প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে, যা ২০২০ সালের জুন মাসের মধ্যে সম্পন্ন হওয়ার কথা রয়েছে। চাঁদপুর স্বাস্থ্য বিভাগের উপ-সহকারী প্রকৌশলীর কার্যালয় থেকে এ তথ্য পাওয়া গেছে।
উপ-সহকারী প্রকৌশলীর কার্যালয়ের তথ্যমতে, জেলার ৮টি প্রকল্পের মধ্যে মতলব উত্তরেই ৩টি প্রকল্প বাস্তবায়ন হচ্ছে। এর মধ্যে অন্যতম হলো উপজেলার চরাঞ্চলের নারী ও শিশুদের স্বাস্থ্যসেবার মানোন্নয়নে মতলব উপজেলার মোহনপুরে ১০ শয্যা বিশিষ্ট মা ও শিশু কল্যাণ হাসপাতাল।
এ হাসপাতালের ৩ তলা ভবন নির্মাণে ব্যয় নির্ধারণ করা হয়েছে ৫ কোটি টাকা। এ হাসপাতালে কর্মরত ডাক্তার ও নার্সদের আবাসিক কোয়ার্টারও নির্মাণ হবে এখানে।
অনুরূপ এ উপজেলার টরকি ইউনিয়নে ‘আবদুল ওয়াদদু মা ও শিশু কল্যাণ’ হাসপাতাল নির্মিত হবে। অনুরূপ ডিজাইনের হওয়ায় এর ব্যয়ও ৫ কোটি টাকা। এ হাসপাতালটির সাথেও ডাক্তার ও নার্সদের আবাসিক কোয়ার্টারও নির্মাণ হবে।
এছাড়া মতলব উত্তর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লে­ক্সকে ৩১ শয্যা থেকে ৫০ শয্যা উন্নতিকরণ ও সম্প্রসারণ প্রকল্প চলমান রয়েছে। এর সাথে স্বাস্থ্য কমপ্লে­ক্সে কর্মরত চিকিৎসকদের আবাসনের জন্যে নতুন ভবন নির্মাণ করা হবে।এ প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছে ১৪ কোটি টাকা।
এদিকে ফরিদগঞ্জে ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সকে ৩১ শয্যা থেকে ৫০ শয্যা উন্নতিকরণ ও সম্প্রসারণ প্রকল্প চলমান রয়েছে। এর সাথে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্মরত চিকিৎসকদের আবাসনের জন্যে নতুন ভবন নির্মাণ করা হবে। এ প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছে ১০ কোটি টাকা।
নদী বিধৌত অঞ্চল তথা চরাঞ্চলবাসীর স্বাস্থ্য সেবার মানোন্নয়নে হাইমচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লে­ক্সকে ৩১ শয্যা থেকে ৫০ শয্যা উন্নতিকরণ ও সম্প্রসারণ প্রকল্প চলমান রয়েছে। এর সাথে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্মরত চিকিৎসকদের আবাসনের জন্যে নতুন ভবন নির্মাণ করা হবে। মতলব উত্তরের তুলনায় এতে আবাসন বেশি থাকবে তাই এ প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছে ৩০ কোটি টাকা।
এছাড়াও চাঁদপুর সদর ও হাইমচর উপজেলাতে পল্লী ও হতদরিদ্র মানুষের স্বাস্থ্যসেবার মানোন্নয়নে সদরের বালিয়া ইউনিয়ন, হাইমচরের উত্তর আলগী ও একই উপজেলার দক্ষিণ আলগী ইউনিয়নে ৩ টি অত্যাধুনিক কমিউনিটি ক্লিনিক নির্মাণ করা হবে। প্রতিটির ব্যয় ধরা হয়েছে ২৮ লাখ টাকা। এসব ক্লিনিকে ডেলিভারি কক্ষ, স্টোর রুম, মেডিকেল অফিসারের কক্ষসহ দু’টি ওয়াশরুম থাকবে।
৩ টি মিলে ব্যয় হবে ৭৪ লাখ টাকার গুচ্ছ এ প্রকল্পটি টেন্ডার প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট প্রকৌশল বিভাগ জানিয়েছেন। এসব উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নকারী প্রতিষ্ঠান চাঁদপুর স্বাস্থ্য বিভাগের উপ-প্রকৌশলী আবদুল আলিম জানান,‘জনগণের স্বাস্থ্যসেবা দোরগোড়ায় পোঁছে দিতে সরকারের স্বাস্থ্য বিভাগ কাজ করছে। সংশ্লিষ্ট চিকিৎসকদের আবাসন ও স্বাস্থ্যসেবার উন্নয়ন ছাড়াও সরকার হাসপাতালগুলোকে আধুনিকায়ন করছে। তাই এসব প্রতিষ্ঠানের কর্মরত চিকিৎসকগণ এখন থেকে গ্রামের নির্মল পরিবেশে থেকে সাধারণ মানুষের স্বাস্থ্যসেবা দিতে পারবেন।

image_printPrint