এবার জুভেন্টাসকে হতাশ করে সেমিফাইনাল নিশ্চিত করলো আয়াক্স

44

তুরিন, ১৭ এপ্রিল ২০১৯ (বাসস) : এবারও চ্যাম্পিয়ন্স লিগ থেকে খালি হাতেই ফিরতে হলো ইতালিয়ান জায়ান্ট জুভেন্টাসকে। কোয়ার্টার ফাইনালে গতকাল তুরিনে ঘরের মাঠে ডাচ ক্লাব আয়াক্সের কাছে দ্বিতীয় লেগে ২-১ গোলে পরাজিত হয়ে দুই লেগ মিলিয়ে ৩-২ গোলে পিছিয়ে থেকে বিদায় নিয়েছে ইতালিয়ান চ্যাম্পিয়নরা।
আমস্টারডামে প্রথম লেগে ১-১ গোলে ড্র হবার পর গতকাল ক্রিস্টিয়ানো রোনাল্ডোর ২৮ মিনিটের গোলে ষষ্ঠ শিরোপার পথে স্বপ্ন দেখা শুরু করেছিল জুভেন্টাস। কিন্তু বিরতির আগে ডনি ফন ডি বিক আয়াক্সের হয়ে সমতা ফেরালে জুভেন্টাসের ওপর চাপ বাড়ে। দ্বিতীয়ার্ধের মাঝামাঝিতে টিনএজ সেন্টার ব্যাক ডি লাইট আয়াক্সকে এগিয়ে দিলে নতুন স্বপ্ন দেখতে শুরু করে ডাচ জায়ান্টরা। শেষ পর্যন্ত এই গোলেই ১৯৯৭ সালের পর প্রথমবারের মত আয়াক্সের চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সেমিফাইনালে খেলার স্বপ্ন পূরণ হয়।
এর আগে তরুন এই ডাচ দলটি টানা তিনবারের চ্যাম্পিয়ন রিয়াল মাদ্রিদকে বিদায় করে দিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালের পথ নিশ্চিত করেছিল। শেষ ১৬’র প্রথম লেগের লড়াইয়ে ঘরের মাঠে ২-১ গোলে পরাজিত হয়ে সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে রিয়াল মাদ্রিদকে ৪-১ গোলে বিধ্বস্ত করে স্মরণীয় জয় তুলে নেয়।
ম্যাচ শেষে উচ্ছ্বসিত কোচ এরিক টেন হাগ বলেছেন, ‘আয়াক্সের জন্য এটা একটি স্মরণীয় রাত। শুধুমাত্র খেলোয়াড় নয় পুরো ডাচ ফুটবলের জন্যই এটা একটি গর্বের বিষয়। আরো একবার আমরা ফেবারিটদের বিদায় করলাম। আগেও আমরা বলেছি এই টুর্ণামেন্টে আমরা ফেবারিট নই, যে কারনে আমাদের হারানোর কিছু নেই। কিন্তু আমাদের দর্শন হচ্ছে সামনে এগিয়ে যাওয়া। আবারো আমরা নিজেদের সীমানা অতিক্রম করেছি।’
এদিকে এই নিয়ে গত পাঁচ মৌসুমে তৃতীয়বারের মত শেষ চারে খেলার স্বপ্ন নিয়েই মাঠে নেমেছিল জুভেন্টাস। কিন্তু আমস্টারডামে ডাইভিং হেড করা রোনাল্ডোই ছিলেন উজ্জীবিত ডাচ দলের বিপক্ষে জুভেন্টাসের একমাত্র অস্ত্র। ৩৪ বছর বয়সী এই পর্তুগীজ সুপারস্টার ছাড়া আর কোন খেলোয়াড়রই নিজেদের মেলে ধরতে পারেনি। গত গ্রীষ্মে রিয়াল মাদ্রিদ থেকে ১০০ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে রোনাল্ডোকে জুভেন্টাসে আনাই হয়েছিল শুধুমাত্র ১৯৯৬ সালের পর প্রথমবারের মত ইউরোপীয়ান শিরোপা জয়ের স্বপ্ন সত্যিই হবার প্রায়সে। সর্বশেষ শিরোপা জয়ের পথে ফাইনালে এই আয়াক্সকেই পরাজিত করেছিল জুভেন্টাস। জুভ কোচ মাসিমিলিয়ানো আলেগ্রি বলেছেন, ‘শেষ চারে যাওয়াটা আয়াক্সের প্রাপ্য ছিল। আমরা আরো ভাল খেলতে পারতাম। কিন্তু আয়াক্স আমাদের সেটা খেলতে দেয়নি। দুই বছর আগে তারা ইউরোপা লিগের ফাইনালে খেলেছিল এবং রিয়ালের বিপক্ষে এবার পাঁচ গোল করেছে। এটা আমাদের সবচেয়ে বাজেভাবে বিদায় নয়। যদিও আমাদের ওপর প্রত্যাশার ব্যপক চাপ ছিল। কিন্তু চ্যাম্পিয়ন্স লিগ একটি আর্শ্চয্যজনক টুর্নামেন্ট। প্রতিটি দলকেই এখানে সর্বোচ্চ সেরাটা দিয়েই খেলতে হবে, তার ব্যতিক্রম হলেই বিদায় নিতে বাধ্য। গত মাসে বেশ কয়েকটি ইনজুরি আমাদের দু:শ্চিন্তায় ফেলেছিল। এমনকি আজ রাতেও বেশ কয়েকজন গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়কে আমরা পাইনি।’
ইনজুরির কারনে অনুপস্থিতি বেড়ে যাওয়ায় অনেকটা বাধ্য হয়েই আলেগ্রি দলকে নতুনভাবে সাজিয়েছিলেন। ইনজুরিগ্রস্থ মারিও মান্দজুকিচের স্থানে দলে ফিরেছেন পাওলো দিবালা। অধিনায়ক গিওর্গিও চিয়েলিনিও সাইডলাইনে ছিলেন। এদিকে নিষেধাজ্ঞার কারণে দলের বাইরে থাকা নিকোলাস টাগলিয়াফিকোর স্থানে খেলতে নামা নোসায়ার মাজরায়িও মাত্র ১১ মিনিটে গোঁড়ালির ইনজুরির কারনে মাঠের বাইরে চলে গেলে আয়াক্সের রক্ষণভাগ চাপে পড়ে। মাজরায়ির স্থানে মাঠে নেমেছিলেন ডালে সিঙ্কগ্রাভেন। ২০ মিনিটে দিবালার হাফ ভলি দারুণ দক্ষতায় রক্ষা করেন আয়াক্স গোলরক্ষক আন্দ্রে ওনানা। তবে ২৮ মিনিটে মিরালেম পাজানিজের কর্ণার থেকে রোনাল্ডো ওনানাকে কোন সুযোগ দেননি। এটি ছিল পর্তুগীজ তারকা ১২৬তম চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ও এবারের মৌসুমে ষষ্ঠ গোল। আয়াক্সের বিপক্ষে রোনাল্ডো এই নিয়ে গত ছয় ম্যাচেই গোল পেলেন। ডাচ ক্লাবটির বিপক্ষে সর্বমোট নয় গোল করেছেন সিআর সেভেন। কিন্তু ৬ মিনিট পর হাকিম জিয়েচের শট নিয়ন্ত্রণে নিয়ে স্বাগতিক দর্শকদের নিশ্চুপ করে দেন ফন ডি বিক। এর মাধ্যমের জুভেন্টাসের এ্যাওয়ে গোল বাতিল হয়ে যায়।
বিরতির পর দিবালার স্থানে খেলতে নামেন টিনএজ স্ট্রাইকার মোয়েস কিন। কিন্তু কিছুক্ষণ পর ডাচ দলটিই সফলতা পায়। জুভেন্টাসের পোলিশ গোলরক্ষক সিজিচনি জিয়েচের শট খুব কাছে থেকে এক হাতে প্রতিহত করার মিনিট খানেক পর ফন ডি বিকের কার্লিং শট অল্পের জন্য বারের উপর দিয়ে চলে যায়। উড়ন্ত গতির ডাচ দলের আক্রমণভাগের কারণে জুভেন্টাসের ব্যাক-লাইন বেশ সমস্যায় পড়ে। ৬৭ মিনিটে ১৯ বছর বয়সী ডি লাইট লাসে শোচেনের কর্ণার থেকে গোল করে আয়াক্সকে এগিয়ে দেন। জিয়েচের পরবর্তী একটি প্রচেষ্টা ভিএআর প্রযুক্তি ব্যবহার করে অফসাইডের কারণে বাতিল হয়ে যায়।
সর্বশেষ ১৯৯৫ সালে আয়াক্স চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শিরোপা জয় করেছিল। ২২ বছর আগে এই জুভেন্টাসকে হারিয়ে শেষ বারের মতো সেমিফাইনালে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছিল আয়াক্স। ইউরোপীয়ান আসর থেকে বিদায় নেয়া জুভেন্টাস এখন সিরি-এ লিগে ফিরে এসে টানা অষ্টম শিরোপা জয়ের পথে মনোযোগী হবে বলে জানিয়েছেন আলেগ্রী।

image_printPrint