১০ জনের ওয়াটফোর্ডের বিপক্ষে আর্সেনালের কষ্টার্জিত জয়

60

লন্ডন, ১৬ এপ্রিল, ২০১৯ (বাসস) : গ্যাবনিজ ফরোয়ার্ড পিয়েরে-এমেরিক অবামেয়াংয়ের একমাত্র গোলে ১০জনের ওয়াটফোর্ডকে পরাজিত করে প্রিমিয়ার লিগ টেবিলের চতুর্থ স্থানে উঠে এসেছে আর্সেনাল। ওয়াটফোর্ডের মাঠে ম্যাচের ১০ মিনিটে জয়সূচক গোলটি করেন অবামেয়াং।
মূলত ওয়াটফোর্ডের গোলরক্ষক বেন ফস্টারের ভুলেই স্বাগতিকদের পরাজয় নিশ্চিত হয়। অবামেয়াংয়ের শট প্রতিহত করতে গিয়ে গোল হজম করে ফস্টার। এরপর ১১ মিনিটে অধিনায়ক ট্রয় ডিনে সরাসরি লাল কার্ড দেখে মাঠ থেকে বিদায় নিলে ১০জনের দলে পরিণত হয় ওয়াটফোর্ড। কিন্তু এই সুবিধাটা ম্যাচের বাকি সময় কোনভাবেই কাজে লাগাতে পারেনি গানাররা। দু’বার স্বাগতিকদের শট পোস্টে লেগে ফেরত আসলে গুরুত্বপূর্ণ তিন পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছাড়ে আর্সেনাল।
মৌসুমে এই প্রথম প্রিমিয়ার লিগে এ্যাওয়ে ম্যাচে কোন গোল হজম করেনি উনাই এমেরির দল। আর এই জয়ে গোল ব্যবধানে চেলসিকে পিছনে ফেলে টেবিলের চতুর্থ স্থানে উঠে এসেছে গানাররা। ম্যাচ শেষে এমেরি স্বীকার করেছেন, ‘যেভাবে চেয়েছিলাম ঠিক সেভাবে ম্যাচটি নিয়ন্ত্রন করতে পারিনি। কিছু সময় ওয়াটফোর্ডের হাতে ম্যাচ চলে যাওয়ায় ছেলেরা বেশ নার্ভাস হয়ে পড়ে। আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ ছিল দ্বিতীয় গোলটি করা যা আমরা করতে পারিনি।’
লিভারপুল ও ম্যানচেস্টার সিটির পর চ্যাম্পিয়ন্স লিগের পরবর্তী দুটি স্থানের জন্য আর্সেনাল ও চেলসির পাশাপাশি লড়াইয়ে টিকে রয়েছে টটেনহ্যাম ও ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। লন্ডনের প্রতিপক্ষ টটেনহ্যামের থেকে এক পয়েন্ট পিছিয়ে ও ইউনাইটেডের থেকে দুই পয়েন্ট এগিয়ে রয়েছে আর্সেনাল।
এফএ কাপ ফাইনালিস্ট ওয়াটফোর্ড আগামী মাসে ওয়েম্বলিতে ফাইনালে ম্যানচেস্টার সিটির মুখোমুখি হবে। ইনজুরির কারনে কাল দলে ছিলেননা স্প্যানিশ ফরোয়ার্ড জেরার্ড ডেলোফে। ম্যাচের শুরুতেই গোল হজম করা থেকে বেরিয়ে আসা আর সম্ভব হয়নি ওয়াটফোর্ডের জন্য। বিশেষ করে অবামেয়াংয়ের গোল যেভাবে ফস্টারের ভুলে জালে জড়িয়েছে তা যেন মেনে নিতে পারছিলনা স্বাগতিকরা। কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে লুকাস টোরেইরার মুখে কনুই দিয়ে আঘাত করার দায়ে ডিনের লাল কার্ডে ওয়াটফোর্ডের সব আশাই শেষ হয়ে যায়। ওয়ার্টফোর্ড বস জার্ভি গার্সিয়া বলেছেন, ‘এটা যদি ফাউল ধরা হয় তবে আমার সন্দেহ আছে। খুব বেশী হলে হলুদ কার্ড হতে পারে, তাই বলে লাল কার্ড! কোনভাবেই বুঝতে পারলাম না রেফারি এটা কেন করলো।’
তারপরেও ১০ জনের দল নিয়েই অতিরিক্ত রক্ষনাত্মক আর্সেনালের উপর প্রায় সময়ই চড়াও হয়ে খেলেছে ওয়াটফোর্ড। ক্রেইগ ক্যাথকার্টারের শট জার্মান গোলরক্ষক বার্নাড লিনোর দক্ষতায় পোস্টে লাগে, এরপর এটিয়েনে কাপোর ফ্রি-কিকে আবারো বাঁধা হয়ে দাঁড়ায় গোলপোস্ট। গোল ব্যবধান বাড়াতে দ্বিতীয়ার্ধে মেসুত ওজিলকে মাঠে নামান এমেরি। কাউন্টার এ্যাটাক থেকে জার্মান এই অভিজ্ঞ তারকা বেশ কয়েকটি বল পেলেও তা কাজে লাগাতে পারেননি। হেনরিক মাখিটারিয়ানকে উদ্দেশ্য করে এ্যালেক্স ইওবির নিখুঁত ক্রস ফস্টারের কারনে সফল হতে পারেনি। ম্যাচের শুরুতে যে ভুল করেছিলেন এই বলটি রক্ষা করে ফস্টার কিছুটা হলেও তার দায়ভার ঘোঁচাতে চেষ্টা করেছেন।

image_printPrint