এফআর টাওয়ারে অগ্নিকান্ডে নিহত কয়েকজনের দাফন সম্পন্ন

299

ঢাকা, ২৯ মার্চ, ২০১৯ (বাসস) : রাজধানীর বনানীস্থ বহুতল ভবন এফআর টাওয়ারে বৃহস্পতিবার অগ্নিকান্ডে নিহত কয়েকজনের দাফন আজ সম্পন্ন হয়েছে।
লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলার আনজির সিদ্দিক আবীরের লাশ শুক্রবার বাদ আছর নামাজের জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে এবং রংপুরের পীরগঞ্জের মোস্তাফিজার রহমানকে (৪০) চতরার আলতাব নগরে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। তাছাড়া অগ্নিকান্ডে নিহত মিজানুর রহমান লিটনকে দাফন করা হয়েছে খুলনার তেরখাদায় পারিবারিক কবরস্থানে।
লালমনিরহাট থেকে বাসস সংবাদদাতা জানান, নিহত আবীরের চাচা মোস্তাাফিজার রহমান জানিয়েছেন, আবীর মিকা সিকিউরিটিস লিমিটেড কোম্পানিতে কর্মরত ছিলেন। এফআর টাওয়ারের ১৪তলায় কোম্পানিটির অফিস ছিল। তিনি লালমনিরহাট জেলার পাটগ্রাম পৌর শহরের আবু বকর সিদ্দিক বাচ্চু মিয়ার ছেলে। দুই ভাইয়ের মধ্যে আবীর ছোট। বৃহস্পতিবার রাত ১০টার দিকে টাওয়ারটির ১৬তলা থেকে আবীরের লাশ উদ্ধার করে সেনাবাহিনীর সদস্যরা।
পাটগ্রাম সরকারি কলেজ মাঠে আজ বাদআছর তার নামাজের জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়েছে।
পীরগঞ্জ (রংপুর) থেকে বাসস প্রতিনিধি জানান, বৃহস্পতিবার রাজধানীর বনানীর এফ আর টাওয়ারে অগ্নিকান্ডে নিহত রংপুরের পীরগঞ্জের মোস্তাফিজার রহমান উপজেলার চতরা ইউনিয়নের কাংগুর পাড়ার মরহুম আব্দুর রশিদ মুন্সির ছেলে।
নিহতের ভাই শহিদুল ইসলাম জানান, এফ আর টাওয়ারের অস্টম তলায় ইমপেয়ার এব্রোসিভ ইন্ডাস্ট্রিজ লি: এর অফিস। এখানে ম্যানেজার পদে মাত্র দেড়মাস আগে তিনি যোগদান করেন। তার স্ত্রী জিনিয়া সুলতানা সনি সাড়ে ৫ বছরের একমাত্র মেয়ে মোজবিহা জাইন নিধিকে নিয়ে মতিঝিলের টিকাটুলিতে বসবাস করতেন।
অগ্নিকান্ডে সময়ে আহত অবস্থায় মোস্তাফিজারকে ঢাকার সিএমএইচএ নেয়া হলে চিকিৎসারত অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। আজ বেলা ১১ টায় মরদেহ পীরগঞ্জে পৌঁছালে বেলা আড়াইটায় চতরার আলতাব নগরে কবরস্থানে জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে বাবার পাশে তাকে সমাহিত করা হয়।
বাসস খুলনা অফিস জানায়, বনানীর এফ আর টাওয়ারে অগ্নিকান্ডে নিহত মিজানুর রহমান লিটনের মরদেহ দুপুরে গ্রামের বাড়ি খুলনার তেরখাদায় এসে পৌঁছে। স্ত্রী সন্তানসহ আত্মীয় স্বজনদের আহাজারিতে বাতাস ভারি হয়ে উঠে। বাদজুমা জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তকে দাফন করা হয়।
লিটনের বাবা মা নেই। পাঁচবছরের এক ছেলে সন্তান রয়েছে তার। তার স্ত্রী আবার সন্তান সম্ভবা। অনাগত সন্তান পৃথিবীতে না আসার আগেই লিটনকে বিদায় নিতে হলো।

image_printPrint